ব্রেকিং

x

চার মামলায় আরও ২৮ দিনের রিমান্ডে সাহেদ

রবিবার, ২৬ জুলাই ২০২০ | ১:২৭ অপরাহ্ণ


চার মামলায় আরও ২৮ দিনের রিমান্ডে সাহেদ
ছবি-সংগৃহীত

রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদ করিমকে ৪ মামলায় ৭ দিন করে ২৮ দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত। রোববার (২৬ জুলাই) ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক তাকে রিমান্ডের আদেশ দেন।

এর আগে সকাল ১০ টায় ১০ দিনের রিমান্ড শেষে তাদের বিরুদ্ধে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিমে তিন ও উত্তরা পূর্ব থানায় প্রতারণার এক মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর পর ১০ দিন করে মোট ৪০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। এ সময় তাদের রাখা হয় আদালতের হাজতখানায়। পরে বেলা ১২টা ১০ মিনিটের দিকে পুলিশ পাহারায় একটি গাড়িতে করে বের করা হয়। এরপর শুনানির জন্য তাদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত হাজির করা হয়। শুনানি শেষে আদালত সাহেদের পৃথক চারটি মামলায় ৭ দিন করে মোট ২৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

করোনা টেস্ট পরীক্ষা প্রতারণার অভিযোগে ১৫ জুলাই ভোরে সাতক্ষীরার সীমান্তের দেবহাটা থানার সাকড় বাজারের পাশে অবস্থিত লবঙ্গপতি এলাকা থেকে নৌকায় পালিয়ে যাওয়া অবস্থায় রিজেন্ট হাসপাতালের শাহেদকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এরপরে বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) শাহেদকে ১০ দিনের রিমান্ডে পাঠায় আদালত।

এছাড়া গত ১৬ জুলাই ঢাকা মহানগর হাকিম মো. জসিসের আদালত সাহেদ ও মাসুদের ১০ দিনের  রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে মেট্রোরেল প্রকল্পে কর্মরত ৭৬ কর্মীকে করোনার ভুয়া রিপোর্ট দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার রিজেন্ট হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মিজানুর রহমান ১০ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন।  গত শনিবার ঢাকা মহানগর হাকিম মইনুল ইসলামের আদালত রিমান্ডের এই আদেশ দেন। গত শুক্রবার রাতে গোপালগঞ্জের একটি বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।



করোনা পরীক্ষার নামে ভুয়া রিপোর্টসহ বিভিন্ন প্রতারণার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় রিজেন্ট হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা তারেক শিবলীসহ আটজনকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গত ৮ জুলাই এই আট আসামির মধ্যে তারেক শিবলী বাদে প্রত্যেকের পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।  ওই দিন কামরুল ইসলাম নামের এক আসামি কিশোর হওয়ায় তাকে গাজীপুর কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানো হয়। এছাড়া তারেক শিবলীকে গত ১০ জুলাই প্রথম দফায় পাঁচ দিন ও গত ১৬ জুলাই দ্বিতীয় দফায় সাত দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন আদালত। এরপর রিমান্ড শেষে গত ২৪ জুলাই আদালতে হাজির করা হলে স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে আদালতে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ৭ জুলাই রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় দণ্ডবিধির ৪০৬/৪১৭/৪৬৫/৪৬৮/৪৭১/২৬৯ ধারায় মামলা দায়ের করে র‌্যাব। মামলায় হাসপাতালের মালিক সাহেদসহ ১৭ জনকে আসামি করা হয়। সুত্রঃ কালের কন্ঠ। সম্পাদনা ম\হ। না ২৬০৭\১০

বাংলাদেশ সময়: ১:২৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২৬ জুলাই ২০২০

যোগাযোগ২৪.কম |

আসামির জবানবন্দিতে আবরার হত্যার বীভৎস বর্ণনা

Development by: Jogajog Media Inc.

বাংলা বাংলা English English