বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২২, ২০২০
Home বাংলাদেশ দীর্ঘ দিনেও বন্ধ হয়নি কলাপাড়ার অবৈধ ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট ক্লিনিক’র বানিজ্য

দীর্ঘ দিনেও বন্ধ হয়নি কলাপাড়ার অবৈধ ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট ক্লিনিক’র বানিজ্য

- Advertisement -

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় দীর্ঘ দিনেও বন্ধ হয়নি নিয়ম বহির্ভূত ভাবে গড়ে ওঠা ১২টি ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও ৪টি প্রাইভেট ক্লিনিক।

চিকিৎসা সেবার নামে এ সব প্রতিষ্ঠানের অপচিকিৎসার খবর গনমাধ্যমে প্রকাশের পর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল শাখার পরিচালকের নেতৃত্বে একটি পরিদর্শন টিম ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর দিনভর এসব প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার পরিদর্শন করেন। এরপর গনমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে এসকল প্রতিষ্ঠানের রোগী নিয়ে বানিজ্য বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ওই পরিদর্শন টিম। কিন্তু মোটা অংকের লেনদেনে আজও বন্ধ হয়নি এসব প্রতিষ্ঠান।

জানা যায়, কলাপাড়ার উপকূলীয় এলাকার মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কতিপয় চিকিৎসক, ষ্টাফ ও স্থানীয় প্রভাবশালীদের সমন্বয়ে পরিচালিত ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট ক্লিনিকের চিকিৎসা সেবা নিয়ে বানিজ্যের তথ্য গনমাধ্যমে প্রকাশের পর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল শাখার পরিচালক ডা: কাজী জাহাঙ্গীর হোসেন, উপ-পরিচালক ডা: শরীফ, সদস্য সচিব ডা: মেহেদি হাসান ও সদস্য ডা: মাসুদ করিম এর নেতৃত্বে একটি পরিদর্শন টিম ৫ অক্টোবর ২০১৭ এসকল ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট ক্লিনিক পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনের সময় কলাপাড়ার কোন ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষ যথাযথ কাগজ প্রত্র প্রদর্শন করতে পারেনি। এমনকি এসকল প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের কর্তব্যরত চিকিৎসক, ব্রাদার, নার্স ও টেকনিশিয়ান তাদের যথাযথ প্রশিক্ষন সনদ সহ প্রয়োজনীয় দক্ষ জনবল দেখাতে পারেনি পরিদর্শন টিমকে। এমনকি এসকল প্রতিষ্ঠান গুলো যে সকল শর্ত পূরনের অঙ্গীকারে লাইসেন্স পেয়েছে তার একটি শর্ত ও পূরন করতে পারেনি অদ্যবধি। শীঘ্রই এগুলো বন্ধ করার প্রয়োজনীয় উদ্দোগ সহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেবার মান নিশ্চিত করতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানানোর কথা জানায় পরিদর্শন টিম সূত্র।

কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিদর্শন শেষে অবৈধ ভাবে পরিচালিত ওই সব স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠান গুলোর মালিক পক্ষের সাথে দফারফা হয় পরিদর্শন টিমের সদস্যদের। কারন পরিদর্শন টিমের একজন সদস্য একসময় কলাপাড়ার একটি বে-সরকারী স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতো। এর আগেও স্বাস্থ্য বিভাগের অপর পরিদর্শন টিমের সদস্যরা প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের চিকিৎসা সেবা নিয়ে বানিজ্য বন্ধে একল প্রতিষ্ঠানে পরিদর্শন শেষে রহস্যজনক কারনে কোন পদক্ষেপ না নিয়ে ঢাকায় ফেরেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল শাখার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানায়, ২০১৭ সালে পরিচালক মহোদয়ের নেতৃত্বে পরিদর্শন টিম বাগেরহাট, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বরগুনা, পটুয়াখালী জেলার সরকারী ও বে-সরকারী স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠান গুলো পরিদর্শন করে। ওই টিমের সদস্যরা প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের বিপক্ষে কোন পদক্ষেপ নেয়নি। এমনকি পদক্ষেপ নিতে সুপারিশ ও করেনি।

এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কতিপয় অসাধু চিকিৎসক, ষ্টাফ ও কতিপয় প্রভাবশালীদের সমন্বয়ে পরিচালিত ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকে স্বাস্থ্য সেবার নামে হয়রানীর শিকার হচ্ছে সাধারন মানুষ। এমনকি প্রভাবশালী এসকল প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার মালিকদের পোষা দালালদের হাতে অসুস্থ্য রোগী ও তার স্বজনদেরকে শারিরীক ভাবে লাঞ্চিত করারও অভিযোগ রয়েছে। এসব ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকে কর্মরত নার্স, ব্রাদার, টেকনিশিয়ান ও ল্যাব সহকারীদের মধ্যে অনেকেরই যথাযথ প্রশিক্ষন সনদ নেই। এসকল প্রতিষ্ঠান গুলোর দালালরা অফিস টাইমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভিতরে ও গেটে অবস্থান নিয়ে রোগী বাগিয়ে নেয়ার বিষয়ে তৎপর থাকে সর্বদা। মাঝে মাঝে রোগী নিয়ে টানা হেঁচড়া সহ দালালে দালালে হাতা-হাতি ও চুলো-চুলির ঘটনাও ঘটছে অহরহ। এসকল ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট ক্লিনিক গুলোতে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে অবৈধ গর্ভপাত করা সহ অন্যরকম বানিজ্যেরও অভিযোগ রয়েছে।

উল্লেখ্য, প্রায় আড়াই লাখ জনসংখ্যার এ উপজেলায় চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে মাত্র ৫জন সরকারী চিকিৎসক রয়েছেন। এদের প্রত্যেকেরই রয়েছে প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার কানেকশন। তাই অফিস সময়ে সরকারী টিকিটের রোগীদের এরা প্রভাবিত করেন তাদের প্রাইভেট প্রাকটিসে নিতে। এদের মধ্যে খোদ স্বাস্থ্য প্রশাসক ডা: চিন্ময় হাওলাদার রাত ১১টা পর্যন্ত রোগী দেখেন তার হাসপাতাল কোয়ার্টারে। আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: জেএইচ খান লেনিন প্রাইভেট রোগী দেখেন মেডিল্যাব ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে , তার স্ত্রী ডা: তাসলিমা ফেরদৌসি রিমা’র মালিকানায় চলে রয়েল ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এবং ডা: আশরাফুল ইসলাম রোগী দেখেন লাইফ কেয়ার ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে।

সুজয় চক্রবর্ত্তী

সর্বশেষ

চ্যানেল এস টেলিভিশনের মাধবদী প্রতিনিধি সুমন পালের পিতার পরলোক গমন

মাধবদী প্রেসক্লাবের সদস্য সুমন পালের পিতা সুবোধ পাল(৬৫) ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে আজ ২১ অক্টোবর বুধবার দিবাগত রাতে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরলোক...

কাঁচাবাজারে সরকার নির্ধারিত দামে মিলছে না আলু

দেশের বাজারে আলুর দাম হঠাৎ বেড়ে যাবার প্রেক্ষিতে সরকার প্রতি কেজি আলুর পাইকারী মূল্য ৩০ টাকা ও খুচরা মূল্য ৩৫ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে।...

(এলপিএল) দল কিনলেন সালমান খানের ভাই সোহেল খান

আইপিএলের সঙ্গে বলিউডের সখ্যতা পুরনো। শাহরুখ খান ও জুহি চাওলার মালিকানায় রয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের মালিকানা রয়েছে প্রীতি জিন্তার হাতে। এছাড়া সম্প্রতি...

(বিসিবি) ক্লাব ফাইনালে নাজমুল-মাহমুদুল্লাহ

ফাইনালে উঠতে হলে জিততেই হতো তামিম একাদশকে। লক্ষ্যটাও খুব বড় ছিল না। ৪১ ওভারে করতে হতো ১৬৪ রান। কিন্তু অধিনায়ক তামিম ইকবাল ৫৭ রান করে...