শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪, ২০২০
Home অপরাধ ও আইন দুই কারণে রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়

দুই কারণে রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়

- Advertisement -

যোগাযোগ ডেস্কঃ

আসামিরা দুই কারণে নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। শ্লীলতাহানির অভিযোগ করে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার ‘সম্মানহানি’ এবং শাহাদাত হোসেন শামীমের প্রেম প্রত্যাখ্যান করায় তারা জোটবদ্ধ হয়ে রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে।

আমার বোনের মতো আরও অনেক ছাত্রীর ওপর অধ্যক্ষ সিরাজের যৌন অত্যাচারের কথা আমরা শুনেছি। আমার বোন বিভিন্ন সময় এর প্রতিবাদ করারও চেষ্টা করেছেন। সোমবার ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে রাফির ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান জেরার মুখে এসব কথা বলেন। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলে জেরা।

বাদীর আইনজীবী এম শাহজাহান সাজু বলেন, এর আগে আসামি শাহাদাত হোসেন শামীম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতেও রায়হানের বক্তব্যই দিয়েছিলেন। শামীম স্বীকার করেছিলেন যে, রাফি প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার সুযোগ নেয় শামীম।

এই দুই কারণে সিরাজ উদ্দৌলার নির্দেশনায় শামীম কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করেন। তারা প্রথমে রাফিকে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির মামলা ও অভিযোগ তুলে নিতে চাপ দেন। কিন্তু রাফি অস্বীকৃতি জানালে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার পরিকল্পনা করেন।

তাছাড়া অপর আসামি নূর উদ্দিনসহ ১২ আসামিই দায় স্বীকার করে আদালতে বলেছেন, অধ্যক্ষ ও তার নিকটজনদের অভিযোগ ছিল, রাফি যৌন হয়রানির মামলা করে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাসহ আলেম সমাজের সম্মানহানি করেছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় মামলার ১০ ও ১১ নম্বর সাক্ষী ওষুধের দোকানদার জহিরুল ইসলাম ও বেলায়াতে হোসাইনের সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে। শুনানির সময় সোমবার সকালে মামলার প্রধান আসামি অধ্যক্ষ সিরাজসহ ১৬ আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়।

চাঞ্চল্যকর নুসরাত হত্যা মামলার বাদী ও নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমানকে জেরার মধ্য দিয়ে মামলার বিচারকাজ শুরু হয়।

এরপর নুসরাতের সহপাঠী নিশাত সুলতানা ও নাসরিন সুলতানা ফূর্তি, ৪ নম্বর সাক্ষী মাদ্রাসার অফিস সহকারী নূরুল আমিন ও নৈশপ্রহরী মোহাম্মদ মোস্তফা, বোরকা দোকানদার জসিম উদ্দিন ও দোকান কর্মচারী হেলাল উদ্দিন ফরহাদ ও কেরোসিন বিক্রেতা লোকমান হোসেন লিটনসহ ৮ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন আদালতে। ২৯ মে আদালতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ১৬ জনকে অভিযুক্ত করে ৮০৮ পৃষ্ঠার অভিযোগপত্র দাখিল করে।

৩০ মে মামলা ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে স্থানান্তর হয়। ১০ জুন মামলাটি আমলে নিয়ে শুনানি শুরু হয়।

সর্বশেষ

১০০ দিনের জন্য সবাইকে মাস্ক পড়তে বলবেন বাইডেন

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষায় ১০০ দিনের জন্য সবাইকে মাস্ক পড়তে বলবেন নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ট্রাম্পের কাছ থেকে ক্ষমতা বুঝে পাওয়ার পরই...

দ্বিতীয় দফায় ইতালিতে প্রানহানির নতুন রেকর্ড

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় দফা আঘাতে লণ্ডভণ্ড ইতালি। নতুন করে বিধি নিষেধ আরোপের দিনে বৃহস্পতিবার মৃত্যুতে রেকর্ড ছুঁয়েছে দেশটি। এদিন সেখানে প্রায় হাজার সংখ্যক ভুক্তভোগী প্রাণ...

বাস-ট্রাক সংঘর্ষে টাঙ্গাইলে নিহত ৬

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় যাত্রীবাহী বাসে ট্রাকের ধাক্কায় ৬ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন। তাৎক্ষণিকভাবে নিহত ও আহতদের পরিচয়...

The Correct Way To Write A Research Paper

What's a research paper? It is among the most essential details of the academic program. Even when you essay writing service are already a...