মঙ্গলবার, জানুয়ারি ১৯, ২০২১
Home অপরাধ ও আইন মৃত ভেবে মহসিনকে রাস্তায় ফেলে রেখে যায় হামলাকারীরা

মৃত ভেবে মহসিনকে রাস্তায় ফেলে রেখে যায় হামলাকারীরা

যোগাযোগ ডেস্কঃ

রিফাত হত্যাকাণ্ডের আরেকটি পুনরাবৃত্তি করতে চেয়েছিল ছিল তারা। তবে কুপিয়ে নয়, লাঠি দিয়ে পিটিয়ে। কিন্তু এক পর্যায়ে মৃত্যু হয়েছে মনে করে তারা রাস্তায় ফেলে যায় মহসিন (২৬) নামের এক যুবককে। এরপর চারপাশের আতঙ্কিত মানুষগুলো কোনো রকমে তাকে নিয়ে যায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। 

এতে ভাগ্যক্রমে বেঁচে যায় সে। মহসিনের বাসা চট্টগ্রাম মহানগরীর আকবর শাহ থানা এলাকার বিশ্ব কলোনির এন-ব্লকে। রোববার বিকেলে বাসার কাছেই বেদম মারধরের শিকার হয় সে।

আর মারধরের এই দৃশ্যটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। যেখানে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা, বিচার দাবিসহ রাষ্ট্রযন্ত্রের ব্যর্থতা নিয়েও সমালোচনায় মেতে উঠে। এরমধ্যে এ ঘটনাকে অনেকে বগুড়ার রিফাত হত্যাকাণ্ডের আরেকটি উপাখ্যান বলে উল্লেখ করে। যা নজর কাড়ে পুলিশের।

তাতে সক্রিয় হয়ে উঠে পুলিশ। এরপর একে একে গ্রেপ্তার করে ঘটনায় জড়িত থাকা ৫ জনকে। এরা হলো- মো. মাসুদ (১৮), মো. মিরাজ (১৭), মো. সাজু (২৪), মো. বেলাল (২০) ও মো. তারেক (১৮)। তারা উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও স্থানীয় কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিমের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। অন্যদিকে মারধরের শিকার মো. মহসিন (২৬) নগরীর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরওয়ার মোর্শেদ কচির অনুসারী।

মারামারির একটি মামলায় সে এক মাস জেল খেটে গত ২৭শে জুন বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম কারাগার থেকে বের হয় বলে জানায় পুলিশ। আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসিম উদ্দিন জানান, মারামারির মামলায় এক মাস জেল খেটে বের হওয়ার মধ্যেই মহসিনকে প্রতিপক্ষের পিটুনির রহস্য লুকিয়ে। এর পেছনেও রয়েছে প্রেমঘটিত বিষয়। যাকে কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনা ঘটায় মহসিন। আর সুযোগ পেয়ে তার প্রতিশোধ নিতেই মহসিনের উপর হামলা ও পিটুনির ঘটনা ঘটায় প্রতিপক্ষরা। তবে তাকে পিটিয়ে মেরে ফেলার পরিকল্পনা ছিল হামলাকারীদের।

এমনকি মৃত্যু হয়েছে মনে করে তাকে রাস্তায় ফেলে চলে আসে তারা। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনা ও পরিকল্পনার কথা স্বীকার করে গ্রেপ্তারকৃতরা। যা বরগুনার রিফাত হত্যাকান্ডের আরেকটি উপাখ্যান বলে স্বীকার করেন ওসি। তিনি বলেন, মহসিনকে মারধরের ভিডিও ফুটেজ এখন আমাদের হাতে। ভিডিও ফুটেজটি মাত্র ১ মিনিট ৩৩ সেকেন্ডের।   ফুটেজে দেখা যায়, দাঁড়িয়ে থাকা এক যুবককে মারতে এগিয়ে আসছে ১০-১২ জনের একটি দল। তাদের দেখে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন ওই যুবক।

যুবকটি দৌড়ে যাওয়ার সময় একটি দেওয়ালের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে পড়ে যায়। তখন হামলাকারীদের একজন এসে তার এক পা ধরে রাখে। মাটিতে শোয়া যুবকটিকে তখন আরও ৫ জন লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকে। এক পর্যায়ে তার মৃত্যু হয়েছে ভেবে যুবকটিকে ফেলে রেখে হামলাকারীরা মাথা উঁচু করে চলে যায়। হামলাকারীদের মধ্যে জুয়েল, তুহিন, রাব্বী, পারভেজ, ফারহান ও খোকন নামে ছয়জনের তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। জুয়েল মারধরের সময় মহসিনের পা ধরে রাখে। তুহিন, রাব্বী, পারভেজ ও ফারহান ক্রিকেট খেলার স্ট্যামেপর মতো লাঠি দিয়ে তাকে পেটায়। আর খোকন তাদের সঙ্গে ছিল।  এরমধ্যে সাজুকে আমরা রাতে গ্রেপ্তার করেছি।

সাজুর বাড়ি দিনাজপুর জেলায়, থাকে চট্টগ্রাম নগরীর আকবর শাহ থানার নন্দন গেইট এলাকায়। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আরো চার জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া অন্যদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানান ওসি।
ওসি জানান, পদ-পদবি না থাকলেও মহসিন নিজেকে যুবলীগ কর্মী হিসেবে পরিচয় দেন। নগরীর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরওয়ার মোর্শেদ কচির বলয়ে থাকা মহসিনের বিরুদ্ধে মারামারি-হামলার একাধিক অভিযোগ আছে।

হামলার পর কচির অনুসারীরা অভিযোগ করেন- স্থানীয় আওয়ামী লীগ দলীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসীমের অনুসারীরা এই হামলা করেছে। আবার এ ঘটনায় কাউন্সিলরের অনুসারীরাও হামলা করেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে, কিন্তু এখনো কোনো মামলা হয়নি। ঘটনা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওসি জসিম উদ্দিন।

স্থানীয় লোকজন জানান, ঘটনার সময় চারপাশের মানুষগুলো আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। ফলে মহসিনকে পিটুনির সময় কেউ এগিয়ে আসেনি। তাকে ফেলে যাওয়ার পর লোকজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক জহিরুল হক ভুইয়া জানান, প্রায় সন্ধ্যার দিকে মহসনিকে চমেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। সেখানে চিকিৎসার পর তাকে ২৮নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সর্বশেষ

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬৯৭

মহামারি করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭ হাজার ৯২২ জনে। এছাড়া গত...

অষ্ট্রেলিয়ার ২০২১ সালে সীমান্ত খোলার সম্ভাবনা নেই

ভ্রমণকারীদের জন্য চলতি বছর অষ্ট্রেলিয়ার আন্তর্জাতিক সীমান্ত খোলার সম্ভাবনা নেই। করোনা ভাইরাসের টিকা দেয়া সত্ত্বেও সীমান্ত বন্ধ রাখার কথা জানালেন দেশটির শীর্ষ একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। অষ্ট্রেলিয়ার...

ইশরাকের খালাসের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে দুদকের আপিল

ঢাকার সাবেক মেয়র প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার পূত্র বিএনপি নেতা প্রকৌশলী ইশরাক হোসেনকে খালাসের রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেছে দুদক। বিচারপতি মো. সেলিমের একক হাইকোর্ট...

জার্মানি থেকে ফিরে আসা রাশিয়ার বিরোধী দলীয় নেতা নাভালনি গ্রেফতার

রাশিয়ার বিরোধী দলীয় নেতা আলেক্সি নাভালনিকে রোববার গ্রেফতার করা হয়েছে। জার্মানি থেকে মস্কোতে ফিরে আসার পর তাকে গ্রেফতার করা হয়। গত কয়েক মাস ধরে তিনি...