ব্রেকিং

x

শিল্পের পর্যায়ে ভণ্ডামি

বুধবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

-->
শিল্পের পর্যায়ে ভণ্ডামি
ঘনবসতির ঢাকা, ফাইল ছবি

“For the ভন্ডা, Of the ভন্ডা, By the ভন্ডা” Lets Know About this ভন্ডা…

তাহলে চলুন জেনে নেই, ভণ্ডামিকে আমরা প্রায় শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে গেছি। আমি কী জানি না- আমার ফ্ল্যাটের সবচেয়ে দামী গাড়িটি কার?


এক সরকারি বেতনে তিনি কিভাবে এ গাড়িটি কিনলেন! আমি কী জানি না ঢাকার হাসপাতাল গুলোয় প্রতিদিন আইসিইউ চার্জ কত! কিভাবে দিনের পর দিন সাধ্যে কুলাচ্ছে মানুষজনের? আমরা কী জানি না ঈদের আগে এক বাস ভাড়া দেখিয়ে আরেক বাস ভাড়া রাখা হয়? মানুষ টিকিট ছাড়া ট্রেনে কিভাবে উঠে?

রাস্তার পাশের দোকানগুলো প্রতিমাসে কত করে দেয়? ট্রাফিক পুলিশের হ্যান্ডশেক কী আমরা চোখে দেখি না?

আমরা কী জানি না- ভার্সিটি গুলোয় উপচে পড়া শিক্ষক কেন! ওয়াসা এক গাড়ি পানি বখশিশ সহ কতদামে বিক্রি করে? রাতের ঢাকায় কোথায় কোথায় কি বসে- আমরা কী কিছুই জানি না? কোন অফিসে কে ঘুষ খাচ্ছে- সে কী কেউ জানি না?

নীলক্ষেতে চলছে ফুটপাত দখল করে রমরমা ব্যাবসা, ফাইল ছবি

নীলক্ষেতে চলছে ফুটপাত দখল করে রমরমা ব্যাবসা, ফাইল ছবি

অথচ আমরা খবর পড়ে আঁৎকে উঠি। ধরুন এ মুহূর্তে পুলিশ ধরা শুরু করলো- মিটার ছাড়া সিএনজি কিংবা হেলমেটবিহীন বাইক অথবা লাইসেন্স বিহীন গাড়ি । এ শহরের একশো শতাংশ সিএনজি মিটার ছাড়া চলছে- আমি আপনি সে- সবাই জানি, কিন্তু ধরা শুরু করলে আমরা অবাক হয়ে যাবো।

‘তাই নাকি? দেশে মিটার ছাড়া সিএনজি চলতেছে! প্যাসেঞ্জার উঠে কেন?!!

এ অবাক হওয়ার অসীম ক্ষমতাই ভণ্ডামি। সবাই সবকিছু জানি, সবকিছু দেখি, প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে পার্টিসিপেট করি। তারপর ফ্ল্যাশ আউট হওয়ার পর “দেখছো, কত খারাপ! দেশ বেঁচে দিলো! দেশ শেষ করে দিলো! ছিঃ ছিঃ ছিঃ!!” আমরা শুধু চেয়ে চেয়ে দেখি আর মোবাইলে ভিডিও করি। সোশাল নেটওয়ার্কে আপলোড করে লাইক কমেন্ট বাহবা নিয়ে মসগুল থাকি।

আমার আগের অফিসের এক ডিজিএম ছিলেন- প্রতি সিগনেচারে তার পিয়ন টাকা রাখতেন। বিশ টাকা, পঞ্চাশ টাকা, একশো টাকা। তার পাশের স্টুডেন্ট সেকশনে কোন কাজই চা নাস্তার বখশিশ ছাড়া হতো না। আমার ফ্রেন্ডলিস্ট ভর্তি বিভিন্ন নিউজ চ্যানেল ও পত্রিকার জার্নালিস্ট। বিশ্বাস করুন, সবাই এ স্ট্যাটাস পড়ে বলবে- রেস্পেক্টের খাতিরে কমেন্ট বক্সে না বলে ইনবক্সে বলবে(গার্বেজ করবে) ‘তাই নাকি! কার সময়? কার সময়?’

ভাগ্য ভালো- ওরা দুর্নীতিতে ফার্স্ট সেকেন্ড দেয়। ভণ্ডামিতে দিলে আমরা একদম মগডালে উঠে বসে থাকতাম। এখানে সব সৃজনশীলতা ভণ্ডামোতে। আর সব দক্ষতা অবাক হওনে!

সানজিদা রিনি

IT Manager

বাংলাদেশ সময়: ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

যোগাযোগ২৪.কম |


আসামির জবানবন্দিতে আবরার হত্যার বীভৎস বর্ণনা

Development by: webnewsdesign.com