রবিবার, নভেম্বর ১, ২০২০
Home others ‘সহযোগীতার হাত চাইনা, ভালোবাসার হাত চাই’

‘সহযোগীতার হাত চাইনা, ভালোবাসার হাত চাই’

- Advertisement -

 

আদরের ছোট ভাইটার বিয়ে। বাড়িভর্তি আত্মীয় স্বজন। সবাই ব্যস্ত। কেউবা ঘর সাজাতে, কেউ আবার বর সাজাতে। সবকিছু হচ্ছে যার রোজগারের টাকাতে সে তার ঘরে। অন্ধকারে। একা। বাবা, মা, ভাই সবাই নিষেধ করে দিয়েছে বিয়েতে যেতে। পরিবারের কেউ তার ছায়াও দেখতে চায়না। কিন্তু কেন! কি দোষ তার!

কথাগুলো কোন একজন মানুষের নয়। কথাগুলো এমন সব মানুষদের যারা নিজেদের ব্যক্তিত্বের জোরেই শ্রদ্ধা আদায় করে নিতে জানেন।.

তেমনি একজন তানভীর আহমেদ কিংবা তাসনুভা আনন। আর পাঁচটা সাধারন মানুষের মতো তার জীবন নয়। একটু বড় হওয়ার পর থেকেই দেখেছেন, কিভাবে তার প্রতি চারপাশের দৃষ্টিটা ধীরে ধীরে বদলেছে। কখনও চূড়ান্ত উপেক্ষা, কখনও আবার অত্যাধিক কৌতূহল ।

সমাজ থেকে পাওয়া আঘাত-যন্ত্রণা কখনও নীরবে সয়েছেন, কখনও কুঁকড়ে উঠেছেন। তবে দোমড়ানো মোচড়ানো সেই মনটা আজ অহঙ্কারী। তাসনুভা একজন মডেল, অভিনেত্রী। কতো পরিচয় তার। অথচ সব পরিচয় আড়াল হয়ে যায় অন্য আরেক পরিচিতির কাছে। সমাজের চোখে তার পরিচয় তিনি একজন বৃহন্নলা, চলতি কথায় ‘হিজড়া’।

এটা কি তার দোষ?  জন্মেছেন ছেলে হয়ে। কিন্তু ছোট থেকে চেয়েছেন মেয়ে হতে। তার ঈশ্বর তাঁকে এভাবে তৈরি করেছেন। দোষ যদি হয় তবে সেই স্রষ্টার যিনি তৈরি করেছেন। বাকি পাঁচটা ছেলে মেয়ের মতো স্কুলে যেতে শুরু করেন তাসনুভা। কিন্তু বন্ধুরা তার পাশে বসতোনা। মেরে উঠিয়ে দিত, হাসাহাসি করতো। ছেলেরাতো কখনো সখনো নোংড়া স্পর্শও করেছে। সবসময় কোনার দিকের একটা বেঞ্চে বসে বাকিদের দেখতেন। জানালার বাইরে বিশাল একটা আকাশ। সবাই খেলছে। অথচ তিনি একদমই একা।

বাড়িতে মা ভাত মেখে ভাইকে খাইয়ে দিতেন। চেয়ে চেয়ে দেখতেন তিনি। বাবা কখনো পাশে বসে খেতেন না। কেউ তাকে কাছেই ঘেষতে দিতোনা। আরেকটু বড় হলে বাড়ি থেকে প্রায় আলাদাই করে দিল। না পেরেছেন ছেলে হতে, না পুরোপুরি মেয়ে। এই সমাজ তাদের চায়না। শিক্ষিত সমাজের কাছে কতো কাজ আছে সবাইকে দেবার মতো। অথচ তাসনুভাদের করার মতো কোন কাজ নেই। কেন? হিজড়া বলে? দশটা দরজায় কড়া নাড়লে একটাও কেউ খুলে দেয়না। তাদের করার জন্যে সাধারন কোন চাকরি কেউ দেয়না।

আজ ছিনতাই, চাঁদাবাজি করে বলে হিজড়াদের কতো দূর্নাম। এর দায় কার? তাদেরোতো পেট আছে। দুইবেলা দুমুঠো ভাত তো লাগবে। এই সমাজ না দেয় কাজ না দেয় ভাতের নিশ্চয়তা। অথচ অসামাজিক কাজ করলেই বিনে পয়সায় জুটে যায় গালি। তাসনুভা বলেন, “বাবামার ভালো ছেলে হতে পারিনি, সমাজে ভালো মানুষও হতে পারিনি। কিন্তু সারাজীবন একটা হাত খুঁজে বেড়াচ্ছি। আকড়ে ধরতে। সহযোগীতার হাত চাইনা,  ভালোবাসার হাত চাই।”

গল্পটা একা তাসনুভা আননের নয়। এই গল্প তাসনুভা, শাম্মি, সবুজ, সুভাশ, আসমানীদের। একেকজন সত্যিকারের মানুষের গল্প। বেড়ে ওঠার গল্প, টিকে থাকার গল্প।

তানভীর আহমেদ কিংবা তাসনুভা আনন, যে পরিচয়েই হোক তিনি আমাদের সমাজের জন্যে আদর্শ দৃষ্টান্ত।এতো বাঁধা বিপত্তি পেরিয়ে, এতো লড়াই করে আজ তিনি সমাজে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। ১৬ বছর বয়সে ঘর ছাড়া হয়ে যোগ দেন বন্ধু ওয়েলফেয়ার সোসাইটিতে। তারপর শুধুই সামনে এগিয়ে চলা। নতুন জীবনের স্বপ্ন। নতুন হাতছানি। তাসনুভা আজ সাফল্যের শিখরে। কৃতিত্বের সাথে উচ্চমাধ্যমিক এবং স্নাতক শেষ করেছেন। বর্তমানে অভিনয় এর পাশাপাশি করছেন মডেলিং। কাজ করছেন থিয়েটার ৫২ তে। এতোকিছুর মধ্যে থেকেও চালিয়ে যাচ্ছেন পড়ালেখা। স্নাতকোত্তর শেষ করার পর পিএইচডির জন্যে দেশের বাইরে যাবার ইচ্ছে তাসনুভার।

তাসনুভারা হারতে শেখেননি। শত প্রতিকূলতাও তানভীরদের তাসনুভা হতে বাঁধা দিতে পারেনা। ইচ্ছেশক্তির জোর সবকিছুকে হারিয়ে দেয়। বর্তমান তরুন প্রজন্মের মধ্যে আত্মহত্যার কিংবা নেশার প্রবণতা তীব্র। কখনো পরিবারের কারনে,কখনো প্রেমে ব্যর্থ হয়ে। অথচ একবার ভাবুন তাসনুভাদের কথা। এই সমাজে টিকে থাকার কোন কারন তাদের ছিলনা। এই সমাজ তাদের কিছুই দেয়নি। প্রেম ভালোবাসাতো বিলাসিতা। শুধুমাত্র ইচ্ছেশক্তি আর আত্মভিমানই তাদের অস্তিত্বের সংগ্রাম টিকিয়ে রেখেছে। তারা আজ অনুপ্রেরণা যোগান হাজারো লড়াকু তাসনুভাকে।

তাসনুভারা আপনার আমার মতো নারী কিংবা পুরুষের গন্ডিতে সীমাবদ্ধ নেই। তারা মানুষ। সত্যিকারের লড়াই করে টিকে থাকা মানুষ। একদিন আসবে যখন তাসনুভারা ভাবতে শেখাবেন তথাকথিত ভদ্র সমাজকে, চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেবেন সমাজের ক্ষতটা ঠিক কতটা গভীর। সময় এখন পরিবর্তনের। সমাজের এবং দৃষ্টভঙ্গির।

Author : Dolon Champa Dutta

Student of Media studies and journalism

সর্বশেষ

সুনামগঞ্জে দাম্পত্য জীবনে কলহের জেরে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় পারিবারিক অস্বচ্ছলতা ও দাম্পত্য জীবনে কলহের জেরে সামিয়া বেগম নামের এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী। আজ শনিবার ভোররাতে...

সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টাই দেশ থেকে চিরতরে দারিদ্র্য মুক্ত হবেঃ প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দারিদ্র বিমোচনে সরকারের পাশাপাশি দেশের বিত্তবানদের সাধারণ জনগণের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টাই দেশ থেকে চিরতরে দারিদ্র্য...

সৌদির মসজিদুল হারামের একটি গেটে গাড়িহামলার ঘটনা ঘটেছে

সৌদি আরবের মক্কায় মসজিদুল হারামের একটি গেটে গাড়িহামলার ঘটনা ঘটেছে। কয়েকটি ব্যারিকেড ভেঙে মসজিদুল হারামের ফাহাদ গেটে আঘাত করে একটি গাড়িটি। তবে এ ঘটনায়...

করোনার কারণে সাত মাস পর কাল থেকে উন্মুক্ত হচ্ছে সুন্দরবন

করোনা মহামারির কারণে টানা সাত মাস বন্ধ থাকার পর কাল থেকে বিশ্ব ঐতিহ্য ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সুন্দরবনের দ্বার উন্মুক্ত হচ্ছে। তবে শর্ত সাপেক্ষে ১ নভেম্বর থেকে...