ব্রেকিং

x

সুপারশপ বিলাসিতা নয়, প্রয়োজন

রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০ | ৫:১৮ অপরাহ্ণ


সুপারশপ বিলাসিতা নয়, প্রয়োজন
ছবিঃ সংগৃহীত

দেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মানায় অনেকেই কাঁচাবাজারে না গিয়ে সুপারশপমুখী হয়েছেন। এমন সংকটকালে সরবরাহ ঠিক রেখে দেশের সুপারশপগুলো দায়িত্বশীল ভূমিকা রেখেছে বলে জানালেন এসিআই লজিস্টিকস লিমিটেডের (স্বপ্ন) নির্বাহী পরিচালক সাব্বির হাসান নাসির।

তিনি জানান, ২০০৮ সালে এসিআই লজিস্টিকস নিয়ে আসে স্বপ্ন সুপারশপ, আমাদের ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শহরে ফ্র্যাঞ্চাইজিসহ ১৩৮টি আউটলেট রয়েছে। ক্রেতাদের অর্থ সাশ্রয়ের মাধ্যমে স্বপ্নপূরণে সহায়তার প্রত্যয়ে স্বপ্ন এখন দেশের সর্ববৃহৎ রিটেইল চেইন সুপারশপ। আগামী মাসে আরো পাঁচটি আউটলেট খোলার পরিকল্পনা আছে এসিআই গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠানটির।

‘করোনাকালে প্রমাণ হলো সুপারশপ মানুষের বিলাসিতার জায়গা নয়। এ রকম সংকটে যেমন হাসপাতাল দরকার তেমনি সুপারশপও। দেশে বছরে এক লাখ কোটি টাকার ওপরে খুচরা বিক্রি হয়, যেখানে সুপারশপগুলোর বার্ষিক টার্নওভার দুই হাজার কোটি টাকার মতো। এর মধ্যে স্বপ্ন একাই এক হাজার কোটি টাকার অবদান রাখছে বলে জানালেন এসিআই লজিস্টিকসের নির্বাহী পরিচালক।

‘করোনাকালে আমরা জোগান ঠিক রেখে মূল্যস্ফীতি যতটা সম্ভব নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করেছি। একই সঙ্গে কর্মী এবং আমাদের ভোক্তাদের সুরক্ষাকেও সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিয়েছি। আমাদের প্রত্যেকটি আউটলেটে ক্রেতাদের সুরক্ষায় আমরা পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, নতুন বাজেটেও সুপারশপে ক্রেতা পর্যায়ে ৫ শতাংশ ভ্যাট অব্যাহত আছে, যা করোনাকালে বাড়তি চাপ বলে মনে করেন এসিআই লজিস্টিকসের নির্বাহী পরিচালক। তিনি বলেন, ‘এই ৫ শতাংশ ভ্যাট উঠিয়ে দিলে ক্রেতাদের কতটা উপকার হতো তা সরকার উপলব্ধি করতে পারেনি। কারণ সবার আয় কমে গেছে।’ সূত্রঃ কালেরকন্ঠ। সম্পাদনা না/রি। ১২০৭/১৪



বাংলাদেশ সময়: ৫:১৮ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০

যোগাযোগ২৪.কম |

আসামির জবানবন্দিতে আবরার হত্যার বীভৎস বর্ণনা

Development by: Jogajog Media Inc.

বাংলা বাংলা English English