নওগাঁর আত্রাইয়ে ফেইসবুকে প্রচারিত রাস্তা নিন্মমান কাজের অভিযোগ ভিত্তিহীন

নওগাঁর আত্রাইয়ে রাস্তা পাকা করণের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে নিন্মমানের কাজের অভিযোগ প্রচারের প্রেক্ষিতে এলজিইডির ল্যাব যন্ত্র দ্বারা তা পরীক্ষা করা হয়েছে। রাস্তার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে নির্মিত রাস্তা পরীক্ষা করে কাজের গুনগতমান যর্থাথ বলে প্রতিয়মান হয়েছে।

জানা যায়, আত্রাই উপজেলার সদরের সন্নিকটে সাহেবগঞ্জ সরদারপাড়া থেকে বিলগলিয়া পর্যন্ত রাস্তাটি খুবই জন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। এলাকার কৃষকদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য সহজেই বাজারজাত করে ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করনের লক্ষে স্তানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি)পক্ষথেকে। সে অনুযায়ী এক কোটি এক লাখ আঠান্ন হাজার এক শত আটাশ টাকা চুক্তি মূল্য নির্দ্ধারণ করে নওগাঁ সদরের মের্সাস দিদারুল এন্টারপ্রাইজ,মুক্তির মোড়,নওগাঁ,নামের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচন করে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়।

এদিকে ঠিকাদার সম্প্রতি এ রাস্তার কার্পেটিংয়ের কাজ সমাপ্ত করেন। রাস্তার কার্পেটিং সমাপ্ত হতে না হতেই সরদার পাড়া মসজিদ সংলগ্ন রাস্তার একধার থেকে কে বা কারা কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলে। উঠে যাওয়া কার্পেটিংয়ের ছবি দিয়ে ফেইসবুকে দেয়া হয়“ রাস্তার কাজ শেষ করে চব্বিশ ঘন্টা না হতেই রাস্তার বেহাল দশা” এমন প্রচারণা চোখে পড়তেই পুরো রাস্তা পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষা নিরিক্ষার ব্যবস্থা গ্রহন করেন উপজেলা প্রকৌশলী জোনায়েত আলম।

এ বিষয়ে উপজেলার পারকাসুন্দা গ্রামের শফিকুল ইসলাম বলেন, ওই স্থান দেখে বুঝা যাচ্ছে লোহার শাবল বা কোন অস্ত্র দ্বারা সেখানকার কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলানো হয়েছে।। এবিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী জোনায়েত আলম বলেন, রাস্তাটির কাজের গুণগতমান ভালো হয়েছে। সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দানকারী এক ব্যক্তির আইডি থেকে এমন বিভান্তি কর সংবাদ প্রচার করা হয়েছে। এ প্রচারণায় আমাদের ডিপাটমেন্টের সুনাম ক্ষুন্ন হয়েছে। কোন অসৎ উদ্যেশ্যেই এমনটি করা হয়েছে বলে মনে হয়। সম্পাদনা ম\হ। না ০১১৩\১১

Related Articles