কানাডায় পুলিশি হেফাজতে সন্দেহভাজন আরেক হামলাকারীর মৃত্যু

ছবি- সংগৃহীত

কানাডার সাসকাচুয়ান প্রদেশে ছুরি নিয়ে হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন দ্বিতীয় হামলাকারীও মারা গেছেন। পুলিশি হেফাজতে নেওয়ার পর তিনি মারা যান বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। খবর বিবিসির।

সাসকাচুয়ান প্রদেশে গত রোববার ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী–অধ্যুষিত এলাকা ও নিকটবর্তী একটি শহরে ছুরি নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ১০ জন নিহত ও ১৮ জন আহত হন। আহত ১০ জন এখনো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা সংকটাপন্ন। এ ঘটনায় ডেমিয়েন স্যান্ডারসন (৩১) ও মায়েলস স্যান্ডারসন (৩০) নামের দুই সন্দেহভাজনকে খুঁজতে থাকে পুলিশ।

সোমবার ডেমিয়েন স্যান্ডারসন (৩১) নামের এক সন্দেহভাজনের লাশ উদ্ধার হয়। জেমস স্মিথ ক্রি নেশন এলাকায় একটি বাড়ির কাছে ঘন ঘাসের ভেতর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এরপর পুলিশি হেফাজতে মারা গেলেন দ্বিতীয় সন্দেহভাজন।

পুলিশ বলেছে, গতকাল বুধবার বিকেলে সাসকাচুয়ান প্রদেশ থেকে মায়েলস স্যান্ডারসনকে হেফাজতে নেওয়া হয়। ঘটনাস্থলের ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, রোসথার্ন শহরের কাছে সাদা এসইউভি মডেলের গাড়ি সড়কের পাশে ছিটকে পড়ে আছে। পুলিশের গাড়িগুলো সেটি ঘিরে রেখেছে।

গতকাল রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশের (আরসিএমপি) সহকারী কমিশনার রোন্ডা ব্ল্যাকমোর বলেন, তাঁরা খবর পেয়েছেন মায়েলস একটি বাড়ির সামনে থেকে একটি গাড়ি চুরি করে নিয়ে গেছেন। তবে ওই চুরির সময় বাড়ির মালিক আহত হননি।

মায়েলস ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বেগে গাড়ি চালিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ তাঁকে তাড়া করে। তারা সন্দেহভাজনের গাড়িটিকে ধাক্কা দিয়ে সড়কের পাশে খাদে ফেলে দেয়। গ্রেপ্তারের পর পুলিশ গাড়ি থেকে একটি ছুরি উদ্ধার করে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, গ্রেপ্তারের কিছুক্ষণ পরই মায়েলস অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তাঁর মৃত্যু হয়। মায়েলসের ভাই আরেক সন্দেহভাজন ডেমিয়েন স্যান্ডারসনকেও পুলিশের তল্লাশি অভিযান চলাকালে হত্যা করা হয়েছিল কি না, তা নিয়ে তদন্ত চলছে।

আরসিএমপির সহকারী কমিশনার রোন্ডা ব্ল্যাকমোর বলেছেন, ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে মায়েলস কীভাবে মারা গেছেন। এ নিয়ে তদন্ত চলছে।  সূত্রঃ প্রথম আলো। সম্পাদনা ম\হ। না ০৯০৮\১৪

Related Articles