কানাডায় মুসলিম পরিবারের চারজনকে হত্যা- আতঙ্কিত ট্রুডো

বৃদ্ধ, নারী-শিশুসহ এক মুসলিম পরিবারের চার সদস্যকে নির্মমভাবে গাড়িচাপা দিয়ে হত্যার ঘটনায় ‘আতঙ্কিত’ হয়ে পড়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। হত্যাকাণ্ডের পরদিন সোমবার এক টুইট বার্তায় এই কথা জানান তিনি।

এর আগে রোববার সন্ধ্যায় টরেন্টো থেকে ১২৪ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমের শহর লন্ডনে রাস্তা পারাপারের জন্য অপেক্ষারত পাকিস্তানি বংশদ্ভুত এক কানাডিয়ান মুসলিম পরিবারকে পরিকল্পিতভাবে গাড়িচাপা দেয় এক খ্রিস্টান যুবক।

এই ঘটনায় ওই পরিবারের ৭৭ ও ৪৪ বছর বয়সী দুই নারী, ৪৬ বছর বয়সী এক পুরুষ ও ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরী নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া হামলায় নয় বছর বয়সী এক বালক মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। আহত বালককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

টুইট বার্তায় জাস্টিন ট্রুডো বলেন, ‘অন্টারিওর লন্ডনের খবরে আমি আতঙ্কিত। গতকালের ঘৃণামূলক কর্মকাণ্ডের শিকার ব্যক্তিদের প্রিয়জনদের পাশে আমরা রয়েছি। আমরা হাসপাতালে থাকা শিশুটির সাথে রয়েছি- তোমার জন্য আমাদের সমবেদনা এবং তোমার সুস্থতাই আমাদের কামনা।’

ট্রুডো আরো বলেন, ‘লন্ডন এবং সারাদেশের মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতি জানাচ্ছি, আমরা আপনাদের পাশেই রয়েছি। ইসলামোফোবিয়ার স্থান আমাদের কোনো সম্প্রদায়ের কাছে নেই। এই ঘৃণা ছলনাময় ও জঘন্য কর্মকাণ্ড তা অবশ্যই বন্ধ হওয়া প্রয়োজন।’

হামলাকারী গাড়িচালককে ইতোমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। গ্রেফতার ২০ বছর বয়সী ন্যাথানিয়েল ভেল্টম্যানের বিরুদ্ধে চারটি হত্যা মামলা ও একটি হত্যাচেষ্টার মামলায় অভিযোগ আনা হয়েছে। সূত্রঃ বেঙ্গলি টাইমস। সম্পাদনা ম\হ। না ০৯০৬\০৯

Related Articles