ভারতে নিষিদ্ধ ইসলামি সংগঠন পিএফআই

ছবি- সংগৃহীত

ভারতের ইসলামি সংগঠন পপুলার ফ্রন্ট অব ইন্ডিয়া’কে (পিএফআই) পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতেতে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করে। বেআইনি কার্যকলাপ নিরোধ আইনে (ইউএপিএ) এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় পিএফআইসহ সংগঠনটির অন্যান্য শাখা সংগঠনকেও যুক্ত করা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, ‘জনসমক্ষে পিএফআই ও সহযোগী সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান আর্থ-সামাজিক, শিক্ষাগত এবং রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে তুলে ধরলেও (পর্দার আড়ালে) সমাজের একটি নির্দিষ্ট অংশের মধ্যে উগ্রপন্থার বীজ বপণের গোপন কর্মসূচি গ্রহণ করে আসছে যা গণতন্ত্রের ভিত্তিকে ধ্বংস করা এবং দেশের সাংবিধানিক কর্তৃপক্ষ ও সাংবিধানিক কাঠামোকে চূড়ান্ত অবহেলা করার লক্ষ্যে কাজ করছে।’

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, একাধিক অপরাধমূলক কাজ এবং সন্ত্রাসমূলক কাজকর্মে জড়িত আছে পিএফআই। বিদেশ থেকে অর্থ সাহায্যও পায় যা দেশের অভ্যন্তরীণ সুরক্ষার ক্ষেত্রে বড়সড় উদ্বেগের বিষয়। পিএফআইয়ের সদস্যরা আইসিসেও যোগ দিয়েছে। সিরিয়ায় সন্ত্রাসমূলক কাজকর্মে জড়িত থেকেছে। জঙ্গি সংগঠন জামাত-উল-মুজাহিদিনের সঙ্গেও পিএফআইয়ের যোগ আছে। সেই পরিস্থিতিতে বেআইনি কাজকর্ম (প্রতিরোধমূলক) আইনের তিন নম্বর ধারার এক উপচ্ছেদের আওতায় যে ক্ষমতা আছে, সেই ক্ষমতার প্রয়োগ করে পিএফআইকে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে।

সম্প্রতি দেশজুড়ে পিএফআই নেতা ও সদস্যদের বাড়ি ও অফিসে যৌথভাবে তল্লাশি চালায় জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ), এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) এবং রাজ্য পুলিশ। সন্ত্রাসবাদে অর্থ যোগান, অস্ত্র প্রশিক্ষণের জন্য শিবিরের আয়োজনের মতো কাজকর্মে যুক্ত আছে বলে যে 'লাগাতার তথ্য ও প্রমাণ' আসছিল সংগঠনটির নেতাদের বিরুদ্ধে তার ভিত্তিতে পাঁচটি এফআইআর রুজু করেছে এনআইএ। সুত্রঃ সমকাল। সম্পাদনা ম\হ। না ০৯২৮\০৫

Related Articles